সোমবার , ১৬ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » তিন মেয়েকে গলাকেটে হত্যা করলো বাবা

তিন মেয়েকে গলাকেটে হত্যা করলো বাবা

cox-bazarকক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলায় তিন মেয়ে শিশুকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে নিদারতরনী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। দাম্পত্য কলহের জের ধরে শিশুদের বাবা তাদের হত্যা করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন মা। ঘটনার পর থেকে বাবা পলাতক।

নিহত তিন শিশু হলো আয়েশা সিদ্দিকা (১০), শিরু জান্নাত শিউলি (৮) ও সারাবান তাহুরা (১ বছর ৬ মাস)। তাদের মধ্যে আয়েশা নিদারতরনী প্রাথমিক স্কুলে দ্বিতীয় শ্রেণিতে, শিরু স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় লেখাপড়া করত। তাদের বাবা আব্দুল গনি পেশায় দিনমজুর । বাড়ি নিদারতরনী গ্রামে।

মা ফাতেমা বেগমের ভাষ্য, হত্যার পর বাবা আব্দুল গনি তাঁর (ফাতেমা) ভাই আজগর আলীকে ফোন করেন। ফাতেমাকে বাড়িতে গিয়ে সন্তানদের দেখে যেতে বলেন। পরে তাঁরা বাড়িতে গিয়ে সন্তানদের লাশ দেখতে পান।

মা ফাতেমা বেগমের তথ্যমতে, স্বামী আব্দুল গনির সঙ্গে তাঁর এক বছর ধরে দাম্পত্য কলহ চলছিল। স্বামী আব্দুল গনি প্রায়ই তাঁকে মেরে ফেলার হুমকি দিতেন। তিন-চারদিন ধরে স্বামী বাসায় কোনো টাকাপয়সা দিতেন না। খাবারের জোগাড়ও করেননি। গতকাল সকালে ফাতেমা বেগম ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) এই ঘটনার বিচার দিতে যান। চেয়ারম্যানকে না পেয়ে তিনি স্থানীয় ইউপি সদস্য খায়রুল বাশারের কাছে অভিযোগ করেন। আব্দুল গনিকে ডেকে এনে বকাঝকা করেন খায়রুল বাশার। এ সময় আব্দুল গনি স্ত্রীকে মেরে ফেলবেন বলে হুমকি দেন বলে বাশার জানিয়েছেন।

ফাতেমার ভাষ্য, খায়রুল বাশার তাঁকে গতকাল রাতে বাসায় থাকতে নিষেধ করেন। এ কারণে তিনি নিদারতরনীতেই তাঁর নানির বাড়িতে থাকেন। ভোরের দিকে তাঁর ভাই আজগর আলীকে স্বামী ফোন করেন। তিনি তাঁকে বলেন, ফাতেমা যেন সন্তানদের এসে দেখে যায়। পরে তাঁরা গিয়ে তিন সন্তানের লাশ পড়ে থাকতে দেখেন।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রভাস চন্দ্র ধরের ভাষ্য, রাতের কোনো একসময় বাবা ধারালো অস্ত্র দিয়ে সন্তানদের হত্যা করেছে বলে তাঁরা ধারণা করছেন। ঘটনার পর থেকে বাবা পলাতক।

আব্দুল গনি ও ফাতেমার ১২ বছরের একটি ছেলে রয়েছে। তার নাম রিফাত। সে ছোটবেলা থেকে নানার বাড়িতে থাকে।

নিহত তিন শিশুর লাশ থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print