শনিবার , ২১ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » ক্রিকেট » ফলোঅনের শঙ্কায় টাইগাররা

ফলোঅনের শঙ্কায় টাইগাররা

testপাকিস্তানের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে ব্যাট করতে নেমে বিপর্যয়ে পড়েছে বাংলাদেশ। আগের ম্যাচে ডাবল সেঞ্চুরি করা তামিম ব্যক্তিগত ৪ রান করে জুনায়েদ খানের বলে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে পড়েন। এরপর ক্রিজে এসে মুমিনুলও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। দলীয় ৩৮ রানের মাথায় টাইগারদের দ্বিতীয় উইকেটের পতন ঘটে। ব্যক্তিগত ১৩ রান করে জুনায়েদ খানের বলে সরফরাজের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন মুমিনুল। পরে ইয়াসির শাহের বলে বোল্ড হন খুলনা টেস্টে সেঞ্চুরি করা ইমরুল কায়েস। তার পথ ধরে ২৮ রান করে ওয়াহাব রিয়াজের বলে আজহার আলীর হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন মাহমুদুল্লাহ। ব্যক্তিগত ১২ রান করে ইয়াসির শাহ’র দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন মুশফিক।
এর আগে ৮ উইকেটে ৫৫৭ রানে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে পাকিস্তান। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশ ৫ উইকেটে ১০৭ রান সংগ্রহ করেছে।

এর আগে মাত্র ২৭ রানের ব্যবধানে শেষ ৪ উইকেট পতনের পর ৫৫৭ রানেই ইনিংস ডিক্লেয়ার করে পাকিস্তান। শুভাগত হোম একই ওভারে আজহার ও শফিককে বিদায় করেন। এরপরের ওভারেই ওয়াহাব রিয়াজ ও ইয়াসির শাহকে ফিরিয়ে দেন তাইজুল। যে পাকিস্তানের রান ছিল ৪ উইকেটে ৫৩০। সেখান থেকে আর মাত্র ২৭ রান যোগ করতেই ৪ উইকেট নেই!

বাংলাদেশ-পাকিস্তান টেস্ট সিরিজে হাফিজ ও তামিমের পর এবার ডাবল সেঞ্চুরি পেয়েছেন পাকিস্তানের আজহার আলী।

ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই উইকেট হারানোর পর দলের হাল ধরেন আজহার ও শফিক। পঞ্চম জুটিতে ২০৭ রান করে আজহার সাজঘরে ফেরেন। শুভাগত হোমকে তুলে মারতে গিয়ে তিনি সীমানায় মাহমুদুল্লাহর হাতে ধরা পড়েন। এর আগে তিনি ২২৫ রানের একটি অনবদ্য ইনিংস উপহার দেন। তার ইনিংসটি ছিল ২০টি চার ও দুটি ছক্কায় সাজানো।

দ্বিতীয় দিনে সাকিবের প্রথম ওভারের চতুর্থ বল এগিয়ে এসে খেলতে গিয়ে বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন মিসবাহ (৯)। তখন পর্যন্ত দ্বিতীয় দিন রানের দেখা পায়নি পাকিস্তান।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print