বুধবার , ২৫ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » টেনিস » ‘তামাশার’ নির্বাচন বাতিল ও ইসির পদত্যাগ দাবি

‘তামাশার’ নির্বাচন বাতিল ও ইসির পদত্যাগ দাবি

amaz-uddin-ahmedসিটি নির্বাচনকে একটি তামাশার আবর্জনা ও বর্জ্য হিসেবে এ নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করে তা বাতিল, পুনর্নির্বাচন ও নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগ দাবি করেছে বিশিষ্ট নাগরিকদের সংগঠন ‘আদর্শ ঢাকা আন্দোলন’।

জাতীয় প্রেস ক্লাবে বুধবার বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেন সংগঠনের আহ্বায়ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ।

তিনি বলেন, আমরা দেশের সংঘাতপূর্ণ রাজনীতিকে একটি সুস্থ আবহ ও প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ গণতন্ত্রে ফিরিয়ে এনে ঢাকাকে সকলের আদর্শ বাসযোগ্য হিসেবে গড়ে তুলতে এ সংগঠন গড়ে তুলেছিলাম। সে কারণে আমরা নির্দিষ্ট কিছু লক্ষ্য নিয়ে, কিছু ভিশন নিয়ে সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থী মনোনয়ন দিয়েছিলাম। ২০ দলীয় জোট তা সমর্থন জানিয়েছিল।

অধ্যাপক এমাজউদ্দীন বলেন, কিন্তু যে নির্বাচন হয়েছে তা কোনো নির্বাচনের পর্যায়ে পড়ে না। নির্বাচনের নামে যা হয়েছে তা আবর্জনা ও বর্জ্য হিসেবে উল্লেখ করতে পারি। আমরা এই নির্বাচন বাতিল, পুনর্নির্বাচন ও ইসির পদত্যাগ দাবি করছি।

তিনি বলেন, বর্তমানে যে কমিশন রয়েছে, তার অধীনে সামনে কোনো নির্বাচন হওয়া সম্ভব না। উচিতও না। নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের মানুষের কাঙ্ক্ষিত গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে এ নির্বাচন কমিশনকে রাখলে হবে না। তাই জাতির বৃহত্তর স্বার্থে তাদের থাকা চলবে না। পদত্যাগ করে সরে যেতে হবে।

সংগঠনের সদস্য সচিব সাংবাদিক শওকত মাহমুদ লিখিত বক্তব্যে বলেন, বিগত ৫ জানুয়ারির একতরফা নির্বাচনে সরকার ক্ষমতায় থেকে যাওয়ার পর থেকে দেশের রাজনীতি দ্বন্দ্ব-সংঘাত-সহিংসতা, বিভেদ ও হানাহানির কারণে অস্থির, অসহিঞ্চু ও প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে ওঠে। আইনের শাসন মারাত্মকভাবে উপেক্ষিত হয়। গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলো ও মূল্যবোধ হয়েছে নিদারুণভাবে নিপীড়িত।

তিনি বলেন, সেই অবস্থা থেকে রাজনীতিকে বের করে এনে আবার গণতান্ত্রিক পথে চলতে সবাইকে সাহায্য করার জন্য আমরা সিটি নির্বাচনে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থী দিয়েছিলাম। আমরা প্রত্যাশা করেছিলাম সরকার ও ইসি সব কিছুর ঊর্ধে উঠে গণতন্ত্র ও আইনের শাসনকে তুলে ধরে সকল প্রার্থীর জন্য সমান সুযোগ নিশ্চিত করে অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য একটি নির্বাচন জাতিকে উপহার দেবে। কিন্তু এক্ষেত্রে তাদের ব্যর্থতা ক্ষমার অযোগ্য।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মাহবুব উল্লাহ, সিনিয়র সাংবাদিক মাহবুবউল্লাহ, সাবেক প্রো-ভিসি প্রফেসর আ ফ ম ইউসুফ হায়দার, ডিইউজের সভাপতি কবি আবদুল হাই শিকদার প্রমুখ।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print