শুক্রবার , ২০ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » টেনিস » নির্বাচনকে ‘তামাশা’ বলে প্রত্যাখ্যান সাকির

নির্বাচনকে ‘তামাশা’ বলে প্রত্যাখ্যান সাকির

junaidঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনকে ‘তামাশা’ ও ‘প্রহসন’ বলে নির্বাচন ও এর ফলাফল প্রত্যাখ্যান করলেন মেয়র প্রার্থী জোনায়েদ সাকি (জোনায়েদ আবদুর রহিম সাকি)।

মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর হাতিরপুলে তার দল গণসংহতি আন্দোলনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

নির্বাচনে জাল ভোট, প্রশাসনের পক্ষপাতিত্ব, পেশী শক্তির প্রভাব, পোলিং এজেন্ট বের করে দেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগ তুলে জোনায়েদ সাকি বলেন, সকাল থেকেই এ ধরনের কার্যকলাপ চলে আসছিল। কিন্তু আমরা পর্যবেক্ষণ করছিলাম। এ পর্যায়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়েছে। স্বভাবতই প্রশাসনের পক্ষপাতমূলক আচরণ ও পেশী শক্তির প্রভাবে নির্বাচনের ফলাফল প্রভাবিত হবে। তাই আমি নির্বাচন ও এর ফলাফল প্রত্যাখ্যান করছি।

তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, সকালে ভোটগ্রহণের শুরু থেকেই আমাদের পোলিং এজেন্টদের বের করে দেওয়া হচ্ছিল। ভোটকেন্দ্র তালাবদ্ধ করে পুরোদমে জাল ভোট দেওয়া হয়েছে। ৪০টি কেন্দ্র থেকে আমাদের পোলিং এজেন্ট বের করে দেওয়া হয়েছে। সাংবাদিকদেরও তাদের পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে দেওয়া হয়নি।

সাকি বলেন, মনোনয়ন পাওয়ার পর যখন থেকে ‍আমরা প্রচারণায় নেমেছিলাম, তখন থেকেই ভাবছিলাম এ ধরনের ঘটনা ঘটবে, কারণ নির্বাচন কমিশন (ইসি) কখনো নিরপেক্ষভাবে কাজ করতে পারেনি। কোনো অবিচারের প্রতিকার করতে পারেনি তারা। আজও এসব কার্যকলাপে ইসি নীরব ছিল। জাল ভোট দেওয়ার সময়, পোলিং এজেন্ট বের করে দেওয়ার সময় তাদের কোনো ভূমিকাই ছিল না।

তিনি বলেন, সকালে আমি যখন মগবাজারের ইস্পাহানি গার্লস স্কুলকেন্দ্রে ভোট দিতে গিয়েছিলাম, তখন থেকেই এ অনিয়ম-জালিয়াতি লক্ষ্য করি। আমি এই নির্বাচনে সম্পূর্ণ অনাস্থা প্রকাশ করছি। এই নির্বাচন তামাশা ও প্রহসনের নির্বাচনে পরিণত হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সাকির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক আহমেদ কামাল, সমন্বয়কারী আবুল হাসান রুবেল, সদস্য অরূপ রাহী, তসলিমা আখতার প্রমুখ।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print